কোটি টাকার সাপ নিয়ে দু’ গ্রুপের মধ্যে হাতাহাতি

81

লক্ষ্মীপুরে একটি কালো ও হলুদ রঙের ডোরাকাটা (হাক্কুনি) সাপকে ঘিরে কৌতুহল দেখা দিয়েছে। একটি মহল সাপটির মূল্য কোটি টাকা বলে প্রচার করায় স্থানীয় যুবকরা বিষয়টিকে কেন্দ্র করে নিজেদের মধ্যে বিরোধে জড়িয়ে পড়েছে। সাপ সংরক্ষণ নিয়ে দুইটি গ্রুপের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনাও ঘটেছে।

বিষয়টি সামাজিক মাধ্যমসহ চারদিকে ছড়িয়ে পড়লে সোমবার দুপুরে স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর আনোয়ার হোসেন সাহী ওই দু’গ্রুপের লোকজনকে ডেকে বিষয়টি সমাধান করে দেন।

এর আগে রোববার (২ অক্টোবর) ভোরে লক্ষ্মীপুর পৌর শহরের ১৫নং ওয়ার্ড বেঁড়ির মাথায় হাজী বাড়ির বাগান থেকে কয়েকজন যুবক সাপটিকে উদ্ধার করে।

স্থানীয়রা জানান, রোববার ভোরে হাজী বাড়ির বাগানে কালো ও হলুদ রঙের একটি ডোরাকাটা সাপ দেখতে পায় স্থানীয় লোকজন। সাপটি দেখতে অনেকটা বাঘের শরীরের মতো। এ সময় সাপটি অনেক দামি ভেবে দিদার, বাবলু, কাশেমসহ ১০ থেকে ১২ জন স্থানীয় যুবক সাপটি বস্তায় ভরে কাশেমের ঘরের ভেতর রাখে। কিন্তু রাতেই বস্তা থেকে আলোচিত সাপটি পালিয়ে যায়।

 

পরদিন সকালে বাবলু এবং দিদার কাশেমের কাছে সাপের সন্ধান চাইলে কাশেম সাপটি রাতেই উধাও হয়ে গেছে বলে জানায়। একপর্যায়ে বাবলু, দিদার ও কাশেমের মাঝে এ নিয়ে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। বিষয়টি স্থানীয় লোকজনের মাঝে জানাজানি হলে এলাকা জুড়ে কৌতুহল সৃষ্টি হয়।

অনেকেই মন্তব্য করেন সাপটি অলৌকিক ছিল অথবা কাশেম সকাল হওয়ার আগেই ওই সাপ অন্যত্র সরিয়ে ফেলে এবং কোটি টাকার বিনিময়ে বিক্রি করে দেয়।

এ বিষয়ে ওয়ার্ড কাউন্সিলর আনোয়ার হোসেন সাহী জানান, একটি (হাক্কুনি) সাপকে কোটি টাকা মূল্য বলে এলাকার যুবকদের মধ্যে দ্বন্দ্ব সৃষ্টি হয়েছে। সাপ নিয়ে গুজব ছড়িয়েছে। তবে উভয় পক্ষকে বিষয়টি নিয়ে বাড়াবাড়ি না করার জন্য সাবধান করে দেওয়া হয়েছে।

লক্ষ্মীপুর শহর ফাঁড়ি থানার ইনচার্জ (এসআই) নাজিম উদ্দিন জানান, বিষয়টি তার জানা নেই। তবে এ ব্যাপারে খোঁজ-খবর নেয়া হচ্ছে।

Share.